যে কারনে পশ্চিমাদের ১৫০০ কোটি ডলার গ্রহণের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান হামাস!

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরসহ গুরুত্বপূর্ণ শহর দখল করে নিচ্ছে ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরায়েল। ইসরায়েলি সন্ত্রাসীদের এ দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত প্রতিরোধ গড়ে তুলছেন ফিলিস্তিনী মুসলমানরা।

দেশটিতে নামমাত্র সরকার ব্যবস্থা থাকলেও ইসরায়েলিদের প্রতিরোধ করতে তাদের তেমন কার্যকরী পদক্ষেপ নজরে পরার মতো নয়। অপরদিকে ইসরায়েলের ইহুদী সন্ত্রাসীদের প্রতিরোধ গড়তে সশস্ত্র সংগ্রাম করছে ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।

হামাসের এই সশস্ত্র আন্দোলনকে দমিয়ে দিতে উঠে পরে লেগেছে পশ্চিমা বিশ্ব। এর জন্য তাদের ষড়যন্ত্রের অন্ত নেই। অবশেষে ফিলিস্তিনীদের মুক্তি আন্দোলনকে দমিয়ে দিতে দেড় হাজার কোটি ডলালের প্রস্তাব দিয়েছে মুুসলিম বিদ্বেষী পশ্চিমা শক্তিগুলো। তারা বলছে বিনিময়ে ফিলিস্তিন প্রতিরোধ আন্দোলনকে অস্ত্র সমর্পণ করতে হবে।

তবে পশ্চিমাদের এই ডলারের প্রস্তাবকে প্রত্যাখ্যান করলেন ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস এর রাজনৈতিক প্রধান ইসমাঈল হানিয়া।

কাতারের আল-লুসাইল পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, তার সংগঠন অস্ত্র সমর্পণের শর্তে পশ্চিমা দেশগুলোর কাছ থেকে উন্নয়ন তহবিল হিসেবে দেড় হাজার কোটি ডলার গ্রহণের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে।

গত সোমবার (২৭ জুলাই) প্রকাশিত ওই সাক্ষাৎকারে হামাস প্রধান বলেন, দুই মাস আগে কয়েকটি গ্রুপ আমাদের কাছে এসেছিল যারা বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ দেশগুলোর কাছ থেকে অর্থ নিয়ে থাকে। তারা আমাদেরকে গাজা উপত্যকার উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য দেড় হাজার কোটি ডলার দেওয়ার প্রস্তাব দেয়। আমরা বলেছি, খুবই সুন্দর প্রস্তাব। অবশ্যই আমরা গাজায় একটি বিমানবন্দর ও সমুদ্রবন্দর প্রতিষ্ঠা করতে চাই। এছাড়া, অন্যান্য অর্থনৈতিক প্রকল্প হাতে নিতে চাই।

কাতারের রাজধানী দোহায় বসবাসকারী ইসমা্ঈল হানিয়া জানান, উন্নয়ন তহবিল দেওয়ার বিনিময়ে তারা হামাসের সামরিক সক্ষমতা ত্যাগ করার প্রস্তাব দিয়েছিল।

দীর্ঘদিন ধরে হামাস ফিলিস্তিনিদের অধিকার রক্ষা করে আসছে। দলটির প্রধান বলেন, হামাসকে নিরস্ত্র করার বিনিময়ে অর্থ সহযোগিতার প্রস্তাব কোনওভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

তারা মূলত ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলনের অস্তিত্বকে মুছে দিতে চায়। কিন্তু কখনও তা হতে দেওয়া হবে না। বরং হামাস গাজার ওপর দেওয়া অবরোধ ভাঙবে এবং সেখানে উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নেবে। এগুলো আমাদের অধিকার। রাজনৈতিক আদর্শ বিসর্জন দিয়ে অর্থ নেওয়া হামাসের পক্ষে সম্ভব নয়।