অবশেষে মসজিদে রূপান্তরিত হল আয়া সোফিয়া, আজ জাতির উদ্দেশ‍্যে ভাষণ দেবেন এরদোগান

ইস্তাম্বুল|


দীর্ঘ প্রতীক্ষা ও জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে আয়া সোফিয়া বা হাজিয়া সোফিয়ার ‘মিউজিয়ামের’ মর্যাদাকে অবৈধ ঘোষণা করল তুরস্কের উচ্চ পর্যায়ের অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কোর্ট। এসংবাদ জানিয়েছে টি আর টি ওয়ার্ল্ড।

দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান ঘটিয়ে আজ শুক্রবার তুরস্কের একটি উচ্চপর্যায়ের আদালত ১৯৩৪ সালে আয়া সোফিয়াকে ‘মিউজিয়ামে’ মর্যাদাকে অবৈধ ঘোষণা করেছে। এরফলে আজ থেকে ঐতিহাসিক আয়া সোফিয়ার দরজা মুসলিম মুসল্লীদের জন্য উন্মুক্ত হয়ে গেল।

তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রজব তৈয়‍্যব এরদোগান সমর্থিত আয়া সোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তরিত করার এই পদক্ষেপকে তুরস্কের একটি এনজিও সংস্থা আদালতে তোলে। অতঃপর আজ তুরস্কের আদালত ঘোষণা দিয়েছে যে, যেহেতু আয়া সোফিয়া ফাতিহ সুলতান মুহাম্মাদ খান ফাউন্ডেশনের অধীনে রয়েছে, আর দলিলে সেটি মসজিদ হিসেবে রয়েছে তাই মসজিদের মর্যাদা পরিবর্তন করা যাবে না।এই পবিত্র মসজিদকে সেক্যুলার কামালপন্থীরা ১৯৩৪ সালে মিউজিয়ামে পরিণত করে।

তবে মসজিদ হিসেবে আয়া সোফিয়া খুলে গেলেও, এই মসজিদ হতে আবার পাঁচ ওয়াক্ত সুমধুর আজান শোনা গেলেও কিন্তু দর্শকদরা অধিকার থেকে বঞ্চিত হবেন না। তুরস্কের রাষ্ট্রপতির মুখপাত্র ইব্রাহীম কালীন এসপ্তাহে ঘোষণা দিয়েছেন যে আয়া সোফিয়া নামাজী ও দর্শনার্থী উভয়ের জন্য উন্মুক্ত থাকবে ঠিক যেমন তুরস্কের নীল মসজিদ , ফাতিহ ও সুলাইমানিয়‍্যাহ মসজিদের মতো মসজিদগুলো নামাজী ও দর্শনার্থী উভয়ের জন্য উন্মুক্ত রয়েছে।এছাড়া এবার হাজিয়া সোফিয়া মসজিদে প্রবেশে কোনো চার্জ লাগবে না।

এদিকে আজ এই ঐতিহাসিক ঘোষণার পর তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রজব তৈয়‍্যব এরদোগান তুরস্কের সময় অনুযায়ী রাত ০৮:৫৩ মিনিটে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন।

উল্লেখ্যঃ ১৪৫৩ সালে উসমানী সাম্রাজ্যের বিখ্যাত ন‍্যায়পরায়ন সুলতান মুহাম্মাদ আল ফাতিহ রহঃ বাইজান্টাইন সাম্রাজ্যের রাজধানী ইস্তাম্বুল বিজয় করেন। তিনি এই শহরটির নাম দেন ইসলামবূল। তিনি সেখানকার অমুসলিমদের জীবন ও সম্পদের পূর্ণ নিরাপত্তা দেন এবং ইসলামী শরীয়াহ অনুযায়ী ‘মিল্লাত প্রথা’র প্রবর্তন করেন। এটি অমুসলিমদের শরীয়াহ অনুযায়ী পূর্ণ অধিকার ফিরিয়ে দেয়। তিনি এসময় শরীয়াহ বিধান অনুযায়ী অবস্থার প্রেক্ষিতে হাজিয়া সোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তরিত করেন।


©টি আর টি বাংলা ডেস্ক