বৃহত্তর বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ডাক কি অবিচ্ছেদ্য বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্যের প্রতিধ্বনি তুলছে??

1
45
[ চিত্র সূত্রঃ যুগান্তর]

হাবিবুর রহমান|


“আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি”
চিরদিন তোমার আকাশ তোমার বাতাস আমার প্রাণে বাজায় বাঁশি।

রবিঠাকুরের এই অমর কবিতার ইতিহাস সবার জানা। ১৯০৫ সালে বাংলা ভাষী অঞ্চল গুলোকে বিভক্ত করে বঙ্গভঙ্গ করা হয়। হাজার হাজার বছরের ইতিহাস ঐতিহ্য সংস্কৃতির মিল বন্ধনের এই বাংলার বিভক্তি সেদিন কেউ মেনে নিতে চাইনি। রবিঠাকুরের এই কবিতায় সেই আকুলতা ফুটে উঠেছে। তিনি সমস্ত বাংলা অঞ্চলকে অবিচ্ছেদ্য মায়ের অঙ্গের সাথে তুলনা করেছিলেন । আর বাংলার দ্বিখণ্ডিত করা মানে মায়ের মৃত্যু সমতুল্য। শুরু হয়ে যায় বঙ্গভঙ্গ বিরোধী আন্দোলন যার ফলে বাধ্য হয়ে ১৯১১ সালে বঙ্গভঙ্গ রদ করে বাংলার অবিচ্ছেদ্য দেহ আবার জুড়ে দেওয়া হয়।

ঐতিহাসিক বর্ণনা মতে সমগ্র বাংলা অঞ্চল শতশত বছর অবিচ্ছেদ্য ভাবে স্বাধীন ছিলো। কখনো কখনো দিল্লির সাম্রাজ্যবাদী শক্তির কাছে তাদের স্বাধীনতা বিলীন হয়েছে।

ঐতিহাসিক বর্ণনা মতে সমগ্র বাংলা অঞ্চল শতশত বছর অবিচ্ছেদ্য ভাবে স্বাধীন ছিলো। কখনো কখনো দিল্লির সাম্রাজ্যবাদী শক্তির কাছে তাদের স্বাধীনতা বিলীন হয়েছে। তবে বার বার সুযোগ পেলেই তারা দিল্লির অধীনতা ছেড়ে শত শত বছর দিল্লির পরাধীনতা হতে মুক্ত হয়ে স্বাধীন ভাবে বাংলা অঞ্চল শাসন করেছেন।

তবে বাংলা এই স্বাধীনতার সূর্য অস্তমিত হয় যায় ১৭৫৭ সালে নবাব সিরাজ উদ্ দৌল্লার পরাজয়ের মধ্য দিয়ে। ১৯৪৭ সালে ভারত পাকিস্তান রাষ্ট্রের জন্মের সময় অবিচ্ছেদ্য ভাবে বাংলা স্বাধীনতা অর্জন করা সম্ভব হয়নি। যদিও বাংলার কিছু রাজনীতিবিধ শেষ সময়ে ঐক্য বদ্ধ বাংলা অঞ্চলের স্বাধীনতা জন্য প্রচেষ্টা চালায় কিন্তু দিল্লির করাচীর ষড়যন্ত্রে এটা সম্ভব হয়নি।যদিও শেষ মুহুর্তে অভিন্ন বাংলা স্বাধীনতা ব্যাপারে কিছু রাজনীতি বীদের প্রচেষ্টায় মোহাম্মদ জিন্নাহ রাজী করানো গিয়েছিল তবে দিল্লিকে এই ব্যাপারে কোন ছাড় দিতে রাজী হয়নি।

ফলে হাজার বছরের ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা ও সংস্কৃতির পরিচয় ভুলে শুধু ধর্মীয় পরিচয়ের উপর ভিত্তি করে সমগ্র বাংলা অঞ্চল খণ্ড বিখন্ড করে দেওয়া হয়। এর কিছু এলাকা বর্তমান বাংলাদেশ অংশ পাকিস্তানের সাথে যোগদান করে,তবে অধিকাংশ এলাকা ভারতের সাথে চলে যায়। বাংলাদেশ পাকিস্তান হতে ২৪ বছরের মধ্যে বেরিয়ে এসে নিজেদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা ও সংস্কৃতির পরিচয় নিয়ে স্বাধীন হতে পারলেও ভারতের অংশে থাকা বাংলা অঞ্চলের স্বাধীনতা বা মুক্তি ৭৪ বছরেও সম্ভব হয়নি।

বরং ভারতের অংশ থাকা বাংলা অঞ্চলে দীর্ঘ সময় দিল্লির শাসনে থাকায় নতুন প্রজন্ম তাদের হাজার হাজার ইতিহাস ঐতিহ্য ভাষা সংস্কৃতির পরিচয় ভূলতে বসেছে। আজ দিল্লির সংস্কৃতি আগ্রাসনে বাংলা অঞ্চলের আলাদা ভাষা সংস্কৃতি ঐতিহ্য বিলুপ্তির পথে। হাজার বছরের ধরে বিভিন্ন ধর্মের মধ্য গড়ে উঠা বাংলার অসাম্প্রদায়িক চেতনা দিল্লির অপ রাজনীতির করাল গ্রাসে ধ্বংসের প্রায়। বর্তমান দিল্লির উগ্রবাদী সরকার বাংলা অঞ্চলের ধর্মীয় বিভেদ উস্কে দিতে ও বাঙ্গলির অত্ত্বপরিচয় ধ্বংস করতে NRC ও CAB মত আজগুবি নীতি গ্রহণ করেছে । ফলে লক্ষ লক্ষ বাঙ্গালী হিন্দু মুসলিম নিজেদের শত বছরের মাতৃভূমি বাংলা হতে বিতাড়িত হতে হচ্ছে।

হাজার বছরের ধরে বিভিন্ন ধর্মের মধ্য গড়ে উঠা বাংলার অসাম্প্রদায়িক চেতনা দিল্লির অপ রাজনীতির করাল গ্রাসে ধ্বংসের প্রায়। বর্তমান দিল্লির উগ্রবাদী সরকার বাংলা অঞ্চলের ধর্মীয় বিভেদ উস্কে দিতে ও বাঙ্গলির অত্ত্বপরিচয় ধ্বংস করতে NRC ও CAB মত আজগুবি নীতি গ্রহণ করেছে । ফলে লক্ষ লক্ষ বাঙ্গালী হিন্দু মুসলিম নিজেদের শত বছরের মাতৃভূমি বাংলা হতে বিতাড়িত হতে হচ্ছে।

অন্যদিকে পাকিস্তান হতে স্বাধীনতা প্রাপ্ত বাংলাদেশ অর্থনৈতিক, সামাজিক, শিক্ষা, যোগাযোগ ব্যবস্হার ক্ষেত্রে ভারতের অংশে থাকা বাংলা অঞ্চলের তুলনায় ঈর্ষানীয় সফলতা অর্জন করেছে। অথচ ১৯৪৭ সালে বাংলা অঞ্চলের মধ্যে সবচেয়ে দুর্ভিক্ষ কবলিত এলাকা ছিল বর্তমান বাংলাদেশের অঞ্চল গুলো । দিল্লির অপ রাজনীতি শিকার ভারতের বাংলা অঞ্চল মানুষ এখন তাদের মুক্তির জন্য অভিন্ন বাংলা অঞ্চল গঠনের কথা মাঝে মাঝে উচ্চারণ করছেন। অন্যদিকে বাংলাদেশ অংশে থাকা বাঙালিরা অভিন্ন বাংলা নিয়ে হাজার বছরের ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা সংস্কৃতির সমৃদ্ধির অর্জনের স্বপ্ন দেখছে । ঐক্যবদ্ধ বাঙালিজাতী গঠন ও শ্রেষ্ঠ শক্তিশালী সমৃদ্ধদেশ গঠনের জন্য বৃহত্তর বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ডাক উঠছে প্রতিটি মহলে।

  • লেখক পরিচিতিঃ লেখক হাবীবুর রহমান হলেন একজন বাংলাদেশী রাজনীতি বিশ্লেষক। টি আর টি বাংলাতে এটি তাঁর লেখা প্রথম প্রবন্ধ।

©টি আর টি বাংলা ডেস্ক

1 COMMENT

  1. Just stop talking nonsense.
    We the Bengalis of West Bengal are very much happy with our Indian identity.
    We wish you good luck for making Bangladesh a prosperous country. Before interfering in any other country kindly ensure that the minorities of Bangladesh get equal rights since Jamati terrorists are still active in many parts of Bangladesh and they always try to harass the minorities,kill them and destroy their sacred places.