হিরো আলমের ৫০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্য বিতরণ

করোনাভাইরাস আতঙ্কে দিন কাটছে মানুষের। সবকিছু স্থবির হওয়ায় নিম্নবিত্তের কষ্টটা আরও বেশি। এ অবস্থায় অনেকেই তাদের দিকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন। ব্যতিক্রম নন আলোচিত চরিত্র আরশাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলমও।

তিনদিন ধরে বগুড়ার নন্দীগ্রাম, কাহালু, শেরপুর এলাকার প্রায় ৫০০ পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, আটাসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করছেন তিনি। কোনো ধরনের অনুদান ছাড়াই নিজের টাকায় এ খাদ্য সামগ্রী কিনে বিতরণ করেছেন হিরো আলম।

বলিউডের অভিনয়শিল্পীদের ভারতের ত্রাণ তহবিলে অর্থ সহায়তার খবর মিললেও বাংলাদেশের শিল্পীদের মাঝে এ ধরনের উদ্যোগ তেমন একটা দেখা যায়নি। হিরো আলমের এমন উদ্যোগের প্রশংসা করছে মানুষ।

যমুনা নিউজকে হিরো আলম বলেন, এই দুর্দিনে আমার সাধ্য অনুযায়ী গরীবের পাশে থাকার চেষ্টা করছি। অন্যদেরও সাধ্য আনুযায়ী নিজ এলাকার মানুষের পাশে থাকা উচিত।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে পরাজিত হয়েছিলেন হিরো আলম। তার মতে, মানুষের পাশে থাকার জন্য এমপি হতে হয় না। যে কেউ যে কোনো সময় দাঁড়াতে পারে।

ত্রাণ দেয়ার সময় সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার ব্যাপারে সতর্ক আছেন কিনা জানতে চাইলে হিরো আলম বলেন, আমি মানুষকে অনেক বলেছি। সবাই আসলে এগুলো বুঝে না। কাছে চলে আসে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ট্রল চরিত্র থেকে খ্যাতি পাওয়া হিরো আলমের সিনেমা ‘সাহসী হিরো আলম’ মুক্তির অপেক্ষায়।