তুর্কি সেনাবাহিনীকে দলে টানার মতো নিকৃষ্ট ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল ফেতুগুলেন সন্ত্রাসি দল

 

ইস্তাম্বুল|


তুরস্কের একসময়কার কুখ্যাত সন্ত্রাসী ফেতুগুলেনের দল তুরস্কের সেনাবাহিনীর মধ‍্যে তাদের সন্ত্রাসবাদী দলে টানার মতো ন্যাক্কারজনক চক্রান্তে ব‍্যস্ত ছিল, এমন গুরুতর অভিযোগ এনেছে উক্ত দলের এক প্রাক্তন সদস‍্য।

এন.ও. নামে পরিচিত উক্ত ব্যাক্তি ফেতুল্লা সন্ত্রাসি দলের সামরিক অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ন্ত্রক হিসেবে কাজ করে কিন্তু ২০১৬ সালের ব্যর্থ গণ অভ্যুত্থানের পর একটি সামরিক অভিযানে সে গ্রেফতার হয়। পরে তিনি তাঁর কৃতকর্মের জন্য তীব্র অনুশোচনা ব্যক্ত করেছেন।

উক্ত ব‍্যাক্তি ১৯৮৩ সালের হাইস্কুলে পড়াকালীন এই সন্ত্রাসি দলে যোগদান করেন এবং তুরস্কের সেনাবাহিনী তুর্ক সিলাহি কুউউয়াতলারী সেকেন্ড আর্মি কম‍্যান্ডের অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ন্ত্রক হিসেবে কাজ করছিল। সন্ত্রাসী গুলেন গোষ্ঠির নেতা ফেতোল্লাগুলেন তাকে ‘উসামা’ উপনাম দিয়েছিল। এই ব্যাক্তি গুলেন গোষ্ঠির সন্ত্রাসবাদের বিষয়ে জানান যে, তাঁকে সেনাবাহিনীকে দলে টানার নিয়ন্ত্রক বা ইমাম নিযুক্ত করা হয়। তাঁরা তাঁদের দলের ক‍্যাডারদের সাথে আঙ্কারায় একটি গোপন মিটিং এ মিলিত হন। তিনি ক‍্যাডারদের এই সন্ত্রাসি দলের বিষয়ে গোপন রাখার মতো নিকৃষ্ট পরামর্শও দেন।

এই সন্ত্রাসি দলে যুক্ত থাকাকালীন তাঁর তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেন যে , গুলেনিষ্টরা তাঁর বিয়ে দেয় । তারা তাদের পছন্দের নারীর সাথে বিয়ে দিত কর্মীদের আর যারা এটা করত না তাদের কোন গোপন বিষয়ে জানানো হত না। তিনি আরো জানান যে তিনি অন‍্যান‍্য নিয়ন্ত্রকদের সাথেও মিলিত হয়েছিলেন যারা সেনাবাহিনীর বিভিন্ন তথ‍্য সন্ত্রাসিদের কাছে পাচার করত।

উল্লেখ্য ২০১৬ সালে এই সন্ত্রাসিদল তুরস্কে গণ অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে ও সন্ত্রাসি কর্মকাণ্ড শুরু করেছিল। ফলে তুরস্ক সরকার এই তুরস্ক ও বিশ্ব থেকে এই দলটিকে মুছে ফেলতে অভিযান শুরু করে। তুরস্কে এই দলকে প্রায় মুছে ফেলা হয়েছে। এই দলের নেতা ফেতুল্লা তুরস্ক ছেড়ে পালিয়ে যায় ও আমেরিকায় আশ্রয় নেয়। পাকিস্তান সহ বিভিন্ন দেশ ও সংগঠন এই দলকে সন্ত্রাসি দল হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।


© মুহাম্মাদ ইয়াসির আরাফাত মল্লিক