মুসলিম বিশ্বের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সম্মেলনের আহ্বান মালয়েশিয়ার

কুয়ালালামপুরঃআগামী ১৮ থেকে ২১ ডিসেম্বর মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে মুসলিম উম্মাহ সম্পর্কিত সমস্যা সমাধানের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে সামিট-এর আয়োজন করা হয়েছে। এ সামিটে অংশগ্রহণ করবে মালয়েশিয়া, তুরস্ক, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া ও কাতার। আয়োজনটির নাম দেয়া হয়েছে ‘কুয়ালালামপুর সামিট-২০১৯’।

সামিট উপলক্ষে বৃহস্পতিবার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ডা. মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, ইসলামিক বিশ্বের নেতা, স্কলার ও ধর্মীয় পণ্ডিতদের নিয়ে আগামী মাসে কুয়ালালামপুরে যে সম্মেলন হতে যাচ্ছে, এই সম্মেলন থেকে ইসলামভীতিসহ বিশ্বের ১.৭ বিলিয়ন মুসলিমদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান প্রস্তাব করা হবে।

মাহাথির বলেন, কুয়ালালামপুর সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে রয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান, এবং কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল-থানি।

মালয়েশিয়ার অর্থনীতি বিষয়ক মন্ত্রী আজমিন আলী ও পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশিও এই সম্মেলনে অংশ নিবেন। ১৮ থেকে ২১ ডিসেম্বর এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

সম্মেলনে যে সব বিষয় আলোচিত হবে, তার মধ্যে রয়েছে উন্নয়নে রাজনীতির ভূমিকা, খাদ্য নিরাপত্তা, জাতীয় পরিচয় সংরক্ষণ, এবং সম্পদের পুনর্বণ্টনের মতো ইস্যুগুলো।

বিশ্ব মুসলিম উম্মাহের ঐক্যের অন্যতম সমর্থক ৯৪ বছর বয়সী মাহাথির বলেন, এই সম্মেলনে বিশ্বের সেই সব চিন্তাবিদরা এক হবেন, ইসলাম সম্পর্কে যাদের ধারণা অভিন্ন এবং যারা একই রকমের চ্যালেঞ্জের মোকাবেলা করছেন”।

মাহাথির যে সব সমস্যাকে চিহ্নিত করেছেন, সেগুলোর মধ্যে রয়েছে মুসলিমদেরকে তাদের মাতৃভূমি থেকে বিতাড়িত করা এবং ইসলামকে ‘সন্ত্রাসবাদের ধর্ম’ আখ্যা দেয়া।

তিনি আফসোসের সাথে বলেন যে, কোন মুসলিম দেশই পুরোপুরি উন্নত নয়, এবং কিছু ইসলামী দেশ এমনকি ‘ব্যর্থ রাষ্ট্রের’ পর্যায়ে চলে গেছে।

তিনি বলেন, “এই সমস্যাগুলোর কারণ কি? এগুলোর পেছনে নিশ্চয়ই কোন কারণ আছে। আমরা যদি চিন্তাবিদ, স্কলার, নেতাদের পর্যবেক্ষণ ও দৃষ্টিভঙ্গিগুলো জানতে পারি, তাহলেই কেবল আমরা এই কারণগুলো জানতে পারবো”।

“আমরা সম্ভবত এই প্রথম পদক্ষেপটা নিতে পারি… মুসলিমদের তাদের অতীত ঐতিহ্য ফিরে পেতে সাহায্য করতে পারি, বা সারা বিশ্বে তারা যে হয়রানি ও দমন-নিপীড়নের শিকার হচ্ছে, সেটা থেকে অন্তুত তাদের রক্ষা করতে পারি”।

মালয়েশিয়ার বেরনামা বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের ফাঁকে মাহাথির যখন পাকিস্তানের খান ও তুরস্কের এরদোয়ানের সাথে বৈঠক করেন, তখন এই সম্মেলনের পরিকল্পনা করা হয়।

©বিবি ডেস্ক