মিশরের মুখে থাপ্পড়ঃ সিরত ও আল জুফরা মুক্ত করার আগে কোনো চুক্তি নয়, সাফ বার্তা তুরস্কের

ইস্তাম্বুল|


গতকাল লিবিয়া নিয়ে মিশরের বিবৃতির কড়া জবাব দিল তুরস্ক। মিশরের রেডলাইন সিরত অতিক্রম করার আগে কোনো আলোচনা হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে তুরস্ক। এসংবাদ জানিয়েছে আল জিসর তুর্ক।

গতকাল অর্থাৎ রবিবার মিশরের স্বৈরশাসক আব্দুল ফাত্তাহ আল সিসি লিবিয়ার সিরতকে রেডলাইন হিসেবে ঘোষণা করে মিশরীয় সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। এরই জবাবে তুরস্ক জানিয়েছে যে, সিরত দখল না করা পর্যন্ত কোনো চুক্তি হবে না।

তুরস্কের রাষ্ট্রপতির মুখপাত্র ইব্রাহীম কালীন ফ্রান্সের একটি সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকারের সময় জানান, সিরত ও আল জুফরা দখল হল লিবিয়ার সেনাবাহিনীর বর্তমান লক্ষ্য। তিনি আরো জানিয়েছেন যে, লিবিয়ার সরকার এখন ২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত হওয়া চুক্তিতে সকল পক্ষকে নিয়ে আসতে চায়। আর এই বিষয়ে তুরস্ক লিবিয়ার সরকারকে সমর্থন করে। আর এর অর্থ হচ্ছে, সিরত ও আল জুফরা হফতার সন্ত্রাসি মুক্তকরণ।

এদিন ফ্রান্সের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসিদের সমর্থন করার অভিযোগ নিয়ে এসেছেন। তিনি বলেন, ” লিবিয়াতে আমরা বৈধ সরকার কে সমর্থন করি আর ফ্রান্স সমর্থন করে একটি অবৈধ যুদ্ধের সর্দারকে সমর্থন করে।”

তিনি ফ্রান্সের বিরুদ্ধে উত্তর আফ্রিকার ও ন‍্যাটো জোটের নিরাপত্তা বিঘ্নিত করা ও লিবিয়ার স্থিতিশীলতা বিঘ্নিত করার দায়ে অভিযুক্ত করেছেন।‌ তিনি এদিন আরব আমিরাত কেও নিন্দা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্যঃ ২০১১ সালে গদ্দাফীর পতনের পর লিবিয়াতে ইসলামপন্থী সরকার গঠিত হলে আরবের কিছু স্বৈরাচারী শাসক দল ও ফ্রান্স , রাশিয়া সহ কিছু ষড়যন্ত্রী দেশের মদতে সন্ত্রাসবাদী হফতার দেশটিকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দেয়। এরপর তুরস্ক সমর্থিত লিবিয়ার সেনাবাহিনী সন্ত্রাসবাদ নির্মূল অভিযান শুরু করে। রাজধানী তারাবলুস বা ত্রিপোলি সহ কিছু গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল সন্ত্রাসি মুক্ত করে এখন তৈল সমৃদ্ধ সিরত ও আল জুফরা সন্ত্রাসিমুক্ত করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।


©টি আর টি বাংলা ডেস্ক

 140 total views,  1 views today

Start Blogging

Register Here


Registered?

Login Here

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.