ছোট্ট একটি ছবি, বড় একটি শিক্ষা || শায়েখ আহমাদুল্লাহ

ছবিটা নিজের হাতে তোলা। ২০১৪ সালে দুবাই থেকে দাম্মামে ফিরছিলাম। সাগর পাড়ি দেওয়ার সময় বিমানের জানালা থেকে নজরে পড়লো সমুদ্রপৃষ্ঠে চলমান কয়েকটি জাহাজের প্রতি। বিমান থেকে বিশালকার জাহাজগুলোকে ছোট ছোট পোকা-মাকড়ের মতো দেখাচ্ছিল। কয়েকটি বিমান হজম হয়ে যাওয়ার মতো জাহাজগুলোকে আমার নিজের অবস্থান থেকে অতি ক্ষুদ্র মনে হচ্ছিল। অপর দিকে জাহাজের আরোহীদের চোখেও নিশ্চয় বিমানটি ছোট একটি পাখির মতোই ক্ষুদ্র পরিদৃষ্ট ছিল!
এই ছোট্ট বিষয়টি থেকেও আমরা অনেক বড় শিক্ষাগ্রহণ করতে পারি। মূলত আমাদের চারপাশে এরকম অসংখ্য শিক্ষণীয় বিষয় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। চোখ-কান খোলা রেখে বিবেক-বিবেচনা ব্যবহার করলে শিক্ষা আহরণ করতে পারব।
এই সাধারণ ছবিটাই দেখুন। অনেক দূরত্ব থেকে বড় বড় জাহাজগুলোকেও অতি ক্ষুদ্র মনে হচ্ছে। বস্তুত নিজের অবস্থান থেকে অন্যের অবস্থানকে ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র মনে হয়। আল্লাহ তা‘আলার ভাষায়, ‘প্রত্যেক দলই তাদের কাছে যা আছে তা নিয়ে আনন্দিত।’ —সূরা মু’মিনূন, আয়াত ৫৩
আজকাল মৌলিক সব বিষয়ে ঐকমত্য সত্ত্বে্‌ও আমরা শাখাগত বিষয়ে সামান্য বুঝের পার্থক্য ও মতের ভিন্নতার কারণে একে অন্যকে তুলোধুনা করে ছাড়ি, বিভিন্ন আপত্তিকর অভিধা যুক্ত করি, বাক্যবাণে জর্জরিত করি। এমনকি অন্যের নিয়ত এবং উদ্দেশ্য নিয়েও বিরূপ মন্তব্য করি! সব সময় নিজের অবস্থানকেই একমাত্র সঠিক মনে করি। নিজের বিপরীত অবস্থানও যে সঠিক হওয়ার সম্ভাবনা রাখে, সেটা বেমালুম ভুলে যাই।
যার মধ্যে জ্ঞানের দৈন্য যতো বেশি, তার মধ্যে এ প্রবণতাটা ততো বেশি দেখা যায়। আল্লাহ আমাদের সুমতি দান করুন। আমীন!
— শায়খ Ahmadullah (হাফিযাহুল্লাহ)

 2,256 total views,  5 views today

Start Blogging

Register Here


Registered?

Login Here

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.